জায়েদ খান শুধু আম্মু না, সবাইকে ডিস্টার্ব করেন: মৌসুমীর ছেলে

জায়েদ খান তো শুধু আমার আম্মু না, কম-বেশি সবাইকে ডিস্টার্ব করেন। তিনি আমার আব্বুর সঙ্গেও বেয়াদবি করেছেন- এমনটি জানিয়েছেন ওমর সানী-মৌসুমী দম্পতির ছেলে ফারদিন। জায়েদ খানের বিরুদ্ধে ওমর সানীর আনা সব অভিযোগ মৌসুমী অস্বীকার করার পর সোমবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেন তাদের ছেলে।ফারদিন আরও বলেন, জায়েদ খান আমার আব্বুর সঙ্গে বেয়াদবি করেছেন, আম্মুর সঙ্গেও করেছেন। আম্মু ভেবেছেন, বিষয়টা সিম্পল ম্যাটার, এটা ফ্যামিলির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকুক। আমরা নিজেরাই সলভ করবো। কিন্তু এটা এত বড় হয়ে যাবে ভাবেন নি।

ফারদিন বলেন, কয়েক জায়গায় দেখলাম আম্মু নাকি বলেছেন, মিথ্যাচারে জড়াচ্ছেন ওমর সানী। এটা আসলে ঠিক না। আম্মু যদি কোথাও স্টেটমেন্ট দেন, আমি বলব, এটা ঠিক না। আসলে এটা পরিস্থিতি ঠান্ডা করার জন্যই বলেছেন। আম্মু আমার সঙ্গে কথাও বলেছেন। তিনিও চান না পত্রিকায়-টিভিতে এসব নিয়ে আলোচনা বা সংবাদ প্রকাশ হোক।ফারদিন এও যোগ করেন, এটা নিয়ে যেন এত কাঁদা ছোড়াছুড়ি না হয়, সেই চিন্তা থেকেই আম্মু কথাগুলো বলেছেন, যেন বিষয়টা দ্রুত ঠান্ডা হয়।

জায়েদ খানকে কোনো গুরুত্ব দিচ্ছেন না উল্লেখ করে মৌসুমীর ছেলে আরও বলেন, ‘আমরা উনাকে নিয়ে চিন্তায় পড়ে যাবো এমন নয়। জায়েদ খান আর রাস্তার ব্যাঙ এক কথা। তাই উনাকে নিয়ে ভাবছি না।’অভিনেত্রী মৌসুমীকে ডিস্টার্ব করার অভিযোগে তার স্বামী ওমর সানী চলচ্চিত্র সমিতির নেতা জায়েদ খানকে চড় মেরেছেন বলে খবর প্রকাশ হয়েছে। এ ঘটনার জেরে জায়েদ খান তার পিস্তল বের করে ওমর সানীকে গুলি করার হুমকি দেন বলেও অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। এরমধ্যেই সোমবার মুখ খুলেন মৌসুমী।

সংবাদমাধ্যমকর্মীদের কাছে ভয়েস মেসেজ পাঠিয়ে তিনি বললেন, ওমর সানী মিথ্যাচার করছে, জায়েদ আমাকে অসম্মান করেনি।’ আমি মনে করি আমার প্রসঙ্গটা টানার কোনো প্রয়োজন ছিল না। আমি জায়েদকে অনেক স্নেহ করি, ও আমাকে যথেষ্ট সম্মান করে। আমাদের মধ্যে যতটুকু কাজের সম্পর্ক, সেটি খুবই ভালো একটা সম্পর্ক। সেখানে ও আমাকে অসম্মান করার কোনো প্রশ্নই উঠে না। আর ওর মধ্যে গুণ ছাড়া এ ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে পারে এমন কিছুই আমি দেখিনি। এরপর বলব ও অনেক ভালো ছেলে। সে কখনই আমাকে অসম্মান করেনি।

তিনি আরও বলেন, আমি মনে করি, এখানে জায়েদের খুব একটা দোষ পাইনি। আরেকটি কথা বলতে চাই, আমাকে ছোট করার মধ্যে আমাদের… যাকে আমরা অনেক শ্রদ্ধা করে আসছি, সেই ওমর সানী ভাই কেন এত আনন্দ পাচ্ছেন, সেটা আমি বুঝতে পারছি না। আমার কোনো সমস্যা থাকলে অবশ্যই আমার সঙ্গে সমাধান করবে, সেটিই আমি আশা করি।এ বিষয়ে ওমর সানী বলেন, ‘আমি যা বলেছি স্পষ্ট করেই বলেছি। আমি শ্রদ্ধা রেখেই কথা বলতে চাই। আমার পরিবারের প্রতি, মৌসুমীর প্রতি আমার প্রচণ্ড শ্রদ্ধা আছে। মৌসুমী আমার সন্তানের মা, স্টিল সে আমার স্ত্রী। একটা কথা বলতে চাই, আমি কি বলেছি না বলেছি সম্পূর্ণ আমার ছেলে ফারদিন, আমার মেয়ে ফাইজা জানে। আমাদের কাছে যথেষ্ট প্রমাণ আছে জায়েদ খান যে মৌসুমীকে ডিস্টার্ব করেছে। ফারদিন বলুক আর ফাইজা বলুক তাদের মায়ের সম্পর্কে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.