আমার কাছে দর্শকের অনেক চাওয়া পাওয়া: দীঘি

শিশুশিল্পী হিসেবে একটি বিজ্ঞাপনে অভিনয়ের মাধ্যমে মিডিয়ায় আসেন তিনি। ছোট্ট ওই বয়সেই কাজ করেছেন অনেক ছবিতে। অভিনয় জগতে তৈরি করেছেন অসীম সম্ভাবনা। সম্প্রতি নায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন তিনি।হ্যা, বলছি প্রার্থনা ফারদিন দীঘির কথা। ওটিটি প্ল্যাটফর্মে সুমন ধর পরিচালিত ‘শেষ চিঠি’ ফিকশনে তুলি চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। ওয়েব ফিল্মটিতে অভিনয় করে প্রশংসায় ভাসছেন দীঘি। এমন দর্শক সাড়া তিনি পাবেন কল্পনাও করেননি।দীঘি বলেন, সত্যি কথা বলতে কী ভাবিনি ‘শেষ চিঠি’ দর্শক এতটা ভালোভাবে গ্রহণ করবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে শুরু করে বাইরে কোথাও বের হলেই সবাই তুলি চরিত্রের কথা বলছেন। ভীষণ ভালো লাগছে সবার এমন প্রতিক্রিয়ায়। ওটিটিতে এত কন্টেন্ট থাকে সেখানে একটা সাধারণ ভালোবাসার গল্প দেখবে আমি আসলে কখনই ভাবিনি। শুটিংয়ের সময় এতটুকুই মাথায় ছিল যাতে মানুষ আমাকে নতুনভাবে চিনতে শুরু করে।

দীঘি বলেন, বাবা আমাকে টেক্সট করেছে এই সিনেমাটা দেখে। যেটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। বাবা সাধারণ কখনো টেক্সট করে না কোনো কিছু দেখে।দায়িত্ব আরও বেড়ে গেছে উল্লেখ করে দীঘি আরও বলেন, আসলে এখন দায়িত্বটা আরও বেড়ে গেল। দর্শকের অনেক চাওয়া পাওয়া আমার কাছে। অনেক বেশি প্রমাণ করা বাকি আছে। আমার আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। সমালোচনা কারোরই ভালো লাগে না। যে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি সেটা নিয়েই এগিেেয় যেতে চাই। সামনে আরও ভালো ভালো কাজ উপহার দিতে চাই সবাইকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.