আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের প্রথম নারী বডিবিল্ডার মাকসুদা

বাংলাদেশের একটি মেয়ে বডিবিল্ডিং করছে—বিষয়টিকে অনেকেই সরলভাবে নিতে পারেননি। অনেকে কটূক্তির চোখেও দেখেছেন। তবে এসবে তোয়াক্কা না করে নিজের লক্ষ্যে অটুট থেকেছেন বাংলাদেশের নারী বডিবিল্ডার মাকসুদা আক্তার।

মাকসুদা তার স্বপ্নের পথে হাঁটা শুরু করেছেন। শরীর গঠন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছেন। এরই মধ্যে জিতেছেন জাতীয় শরীর গঠন প্রতিযোগিতায়। জিতেছেন বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমসের নারী ইভেন্টের উন্মুক্ত শ্রেণিতে শিরোপা। তিনি এখন অপেক্ষায় দেশের প্রথম নারী হিসেবে কোনো আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের।

ভারতের মুম্বাইয়ে আজ শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে আইএইচএফএফ অলিম্পিয়া অ্যামেচার বডিবিল্ডিং চ্যাম্পিয়নশিপ। এই প্রতিযোগিতায় ‘ওমেন ফিজিক’ শ্রেণিতে অংশ নেবেন বাংলাদেশের মাকসুদা। প্রতিযোগিতাটি চলবে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক আসরে অংশ নিতে পেরে রোমাঞ্চিত মাকসুদা। মুম্বাই থেকে মুঠোফোনে বলছিলেন, ‘আমাদের দেশে মেয়েদের বডিবিল্ডিং নিয়ে এখনো একটা ট্যাবু আছে। সেই বাধার দেওয়াল ভাঙার চেষ্টা করছি আমি, যাতে আমাদের দেশের অন্য মেয়েরাও বডিবিল্ডিংয়ে আসতে পারেন। প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক আসরে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে খুব ভালো লাগছে আমার।’

পতেঙ্গা নৌবাহিনী স্কুল ও কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করা মাকসুদা টেক্সটাইল ডিজাইনের ওপর পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন করতে ২০১৭ সালে ভারতের পাঞ্জাবে যান। সেখানে পড়াশোনার পাশাপাশি একসময় নিয়মিত জিমে যেতেন। শরীরচর্চা করতে জিমে গিয়ে তা রীতিমতো নেশায় পরিণত হয় তার। এরপর শরীরচর্চা নিয়ে পড়াশোনা করেন। এরপর বডি বিল্ডিংকেই স্বপ্ন বানিয়েছেন তিনি।

কঠোর প্রতিবন্ধকতার বেড়াজাল ভেঙে বডিবিল্ডিংয়ে আসা মাকসুদা এরই মধ্যে হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশের অনেকের অনুকরণীয়। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মাত্র পথচলা শুরু মাকসুদার।এরপর বডি বিল্ডিংকেই স্বপ্ন বানিয়েছেন তিনি।

কঠোর প্রতিবন্ধকতার বেড়াজাল ভেঙে বডিবিল্ডিংয়ে আসা মাকসুদা এরই মধ্যে হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশের অনেকের অনুকরণীয়। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মাত্র পথচলা শুরু মাকসুদার।তার স্বপ্ন সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে এক দিন বিশ্বের বুকে ওড়াবেন নারী বডিবিল্ডিংয়ে বাংলাদেশের পতাকা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*