বিয়ের ১০ বছর পরও সন্তান না হওয়ার কারন জানালেন তিশা

নারীর জন্য মা হওয়া সর্বোচ্চ গর্বের বিষয়। জীবনের অন্যান্য ক্ষেত্রে যতই সফলতা আসুক, মা হওয়ার মতো সম্মান আর কিছুতে নেই। কিন্তু অনেকেই অবহেলা কিংবা ব্যস্ততায় সময় পার করে দেয়।

কেউবা ক্যারিয়ারের কথা চিন্তা করে মা হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়না। ছোট্ট একটা ডাক্তারি তথ্য জানানো জরুরি, ’১৫ বছরের আগে কিংবা ৪৯ বছরের পরে কোনো নারী মা হতে পারেন না। তবে ৪৯ এর আগেই অনেকে মা হওয়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেন। আবার এর পরে মা হয় কেউ কেউ, তবে সেটা খুবই কম।’

আমাদের শোবিজে বহুল আ’লোচিত দুই নাম। মোস্তফা সরয়ার ফারুকী’’ ও নুসরাত ইম’রোজ তিশা। একজন নির্মাতা, অন্যজন অ’ভিনেত্রী। ২০১০ সালের ১৪ জুলাই তারা বিয়ের পিঁড়িতে বসেন। তারপর ফের দুজনেই কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। সুখের সংসারে কখনো কোন খা’রাপ সংবাদ আসেনি।

তবে সুসংবাদও আসেনি। তাদের সংসারের সবচেয়ে বড় সুসংবাদ হতে পারতো নতুন অ’তিথির আগমন। তা হলো না। খুব শীঘ্রই এমন কোন সিদ্ধান্তে তাঁরা পৌছাবে বলেও মনে হয় না।

এ নিয়ে তিশা বলেন, ‘ আপাতত অ’ভিনয় নিয়েই ব্যস্ত আছি। সামনে নতুন সিনেমা’র শুটিং শুরু হবে। ভাবনায় আছে, তবে এখনি না। আসলে সন্তান নিলে যে

অ’ভিনয়ে খুব বেশি সমস্যা হবে তা আমি মনে করি না। তবে সন্তান নিলে একটা লম্বা সময় কাজের বিরতি নিতে হবে। সবকিছু মিলিয়ে ভালো খবর খুব শীঘ্রই আসতেও পারে’।

সাবেক স্বামীকে খোঁচা দিয়ে পোস্ট দিলেন মাহিয়া মাহি

আবারও বিয়ে করেছেন ঢাকাই ছবির নায়িকা মাহিয়া মাহি। গাজীপুরের ব্যবসায়ী-রাজনীতিবিদ রাকিব সরকারকে বিয়ে করেন তিনি। বিয়ের ছবিসহ খবরটি মাহি নিজেই প্রকাশ্যে এনেছেন। যদিও এর আগে রাকিব সরকারকে নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। তা উড়িয়ে দিয়েছিলেন মাহিয়া মাহি।

রাকিবের সঙ্গে মাহির বিয়েতে শুভকামনা জানিয়েছেন তার আগের স্বামী সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপু। ২০১৬ সালে বিয়ের পর মাহি ও অপু প্রায় পাঁচ বছর সংসার করেছেন। চলতি বছরের মে মাসে মাহি বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন।

রাকিবকে বিয়ের তিন দিন পর বুধবার সন্ধ্যায় ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেন মাহি। তার ক্যাপশনেই তিনি ইঙ্গিতপূর্ণ কথা লিখেছেন।

মাহি লেখেন, যখন আপনি কাউকে আপনার জীবন থেকে বাদ দেন, তখন তারা মানুষকে পুরো গল্পটি বলবে না, তারা কেবল তাদের সেই অংশটি বলবে; যা আপনাকে খারাপভাবে প্রকাশ করবে এবং তাদেরকে নির্দোষ দেখাবে।

যদিও মাহি তার স্ট্যাটাসে অপুর নাম উল্লেখ করেননি, কিন্তু নেটিজেনরা বলছেন এসব তিনি সাবেক স্বামী অপুরে উদ্দেশ্যেই লিখেছেন। মাহির এই পোস্টে কমেন্ট করেছেন তার বর্তমান স্বামী রাকিব সরকার। তিনি লিখেছেন, ‘কয় জন বড় হয় না, সয় জন বড় হয়।’

এর আগে অপু গণমাধ্যমের কাছে বলেছিলেন, বিয়ের খবর শুনেছি আগেই। আজ ফেসবুকে দেখলাম। তার নতুন জীবনের জন্য শুভকামনা রইল। আমার পরিবারের মান-সম্মান অনেক বড়। এ ব্যাপারে আমি আর কথা বলতে আগ্রহী নই। আমি খুব সাধারণ মানুষ, সাধারণভাবেই জীবন-যাপন করতে চাই।

প্রসঙ্গত, সিলেটের ব্যবসায়ী অপুকে বিয়ে করার পর ২০১৬ সালে মাহির আরও একটি বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসে। শাওন নামের এক ব্যক্তিকে তিনি ২০১৫ সালে বিয়ে করেছিলেন। বিষয়টি নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হওয়ায় সাইবার আইনে মামলাও করেছিলেন মাহি। সেই মামলার তদন্তে মাহি ও শাওনের বিয়ের সত্যতা পাওয়া যায়।

Author: Admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *